কম দামে vivo সেট

সেরা ৫টি কম দামে vivo সেট এর রিভিউ ও বিস্তারিত

আসসালামু আলাইকুম, আপনারা যারা কম দামে ভিভো সেট খুজতেছেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। এই পোস্টে আমরা বেশ কয়েকটি কম দামে vivo সেট আপনাদের সাথে শেয়ার করব যেগুলোর দাম অনেক কম।

বাংলাদেশে যে সকল মোবাইল কোম্পানির মোবাইল চলে তার মধ্যে ভিভো কোম্পানি অনেক জনপ্রিয় একটি ব্রান্ড। এই ব্র্যান্ডের মোবাইলগুলো আমরা অনেকেই ক্রয় করতে চাই কারণ এদের রেপুটেশন অনেক ভালো ।

কিন্তু এই ভিভো কোম্পানির মোবাইল গুলোর দাম কিছুটা বেশি হয়ে থাকে। যার কারণে আমরা চাইলেও এই ভিভো কোম্পানির মোবাইল গুলো সহজে কিনতে পারে না। কিন্তু যদি আপনারা কম দামে ভিভো vivo সেট গুলো সম্পর্কে জেনে নেন তাহলে কিন্তু কিনতে পারবেন।

কম দামে vivo সেট

তাহলে নিচে এখন এই কম দামে vivo সেট গুলো এক এক করে আপনাদের সাথে নাম ও বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরা হলো। এখান থেকে সুন্দরভাবে আপনারা সব ইনফো দেখতে পারবেন।

Vivo Y1s

ভিভো কোম্পানির মোবাইল গুলোর মধ্যে বেশ কম দাম রয়েছে এই vivo y1s মোবাইলটির । এই মোবাইলটি একটু পুরাতন মডেল যার কারণে এর দাম কিছুটা কম রাখা হয়েছে।

তো আমরা নিচে এখন এই vivo y1s মোবাইলটি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেব এবং জানবো যে মোবাইলে ক্রয় করা ঠিক হবে কিনা।

  • বর্তমান মোবাইলটির মার্কেট প্রাইস মাত্র ৮৯৯৯ টাকা। ২০২০ সালের নভেম্বর মাসের শেষের দিকে এই মোবাইল সর্বপ্রথম বাংলাদেশে লঞ্চ হয়েছিল।
  • মোবাইলটি হালকা ব্লু এবং কালো রং এর পাওয়া যায় । এই মোবাইলে আপনারা ২ জিবি রেম এবং ৩২ জিবি ফোন মেমোরি এর সাথে পেয়ে যাবেন।
  • মোবাইলের ওজন ১৬১ গ্রাম এবং এর ডিসপ্লে এর সাইজ হচ্ছে 6.22 ইঞ্চি ।
  • মোবাইল ফোনের মধ্যে যে ডিসপ্লেটি ব্যবহার করা হয়েছে এটি এইচডি প্লাস এবং মাল্টি টাচ টেকনোলজির একটি ডিসপ্লে।
  • ডিসপ্লেটির ওপরে কোন আলাদা প্রোটেকশন এর ইনফরমেশন পাওয়া যায়নি। আর এটি রেজুলেশন হচ্ছে 720 × 1520 পিক্সেল।
  • এই মোবাইলের ব্যাক ক্যামেরা সেকশনে ১৩ মেগাপিক্সেলের একটি ক্যামেরা শুটার এবং সেলফি ক্যামেরা সেকশনে ৫ মেগাপিক্সেলের আরেকটি সেলফি শুটার ব্যবহার করা হয়েছে।
  • লিথিয়াম পলিমার এর ৪০৩০ মিলিম্পিয়ার এর একটি ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে মোবাইল ফোনের মধ্যে। এই ব্যাটারিটি দিয়ে আপনারা সর্বোচ্চ একদিন ভালোভাবে মোবাইলটিকে ব্যবহার করতে পারবেন।

আশা করি এই ভিভো ওয়াই ওয়ান এস মোবাইলটি সম্পর্কে বেশ কিছু ইনফরমেশন আপনারা জেনে গেছেন। যদি এই মোবাইলের স্পেসিফিকেশন গুলো দেখে আপনাদের ভালো লাগে তাহলে চাইলে এটি ক্রয় করতে পারেন। কম দামে ভিভো সেট এর মধ্যে এটি আমার কাছে বেশ ভালই লেগেছে।

Vivo Y53

এই vivo y53 মোবাইলটি ও মোটামুটি ৮৯৯০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। তবে মোবাইলটি একটু পুরাতন মডেল এর এবং বাংলাদেশে বেশ কয়েক বছর আগে এসেছিল।

এই ভিভো মোবাইল সম্পর্কে বিস্তারিত ইনফরমেশন গুলো নিচে পয়েন্ট আকারে উল্লেখ করা হলো।

  • সর্বপ্রথম মোবাইলটি 2017 সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশে লঞ্চ করা হয়েছিল । কালো এবং সোনালী এই দুটি কালারের মধ্যে মোবাইলটি নিতে পারবেন।
  • এই মোবাইলটির মডেল পুরাতন হলেও এতে আপনারা টুজি থ্রিজি সহ ফোর জি নেটওয়ার্কও ব্যবহার করতে পারবেন।
  • এখানে ইউএসবি 2.0 ব্যবহার করা হয়েছে এবং এতে ওয়াইফাই লোকেশন এবং ব্লুটুথ সহ যাবতীয় গুরুত্বপূর্ণ নেটওয়ার্ক কানেক্টিভিটি গুলো পেয়ে যাবেন খুব সহজে।
  • এটাতে জিপিএস লোকেশন সিস্টেম চালু আছে এছাড়াও ওটিজি ক্যাবল ও ব্যবহার করা যাবে।
  • এই মোবাইলের ডিসপ্লে সাইজ হচ্ছে ৫.১ ইঞ্জি। আর মোবাইলের ওজন হচ্ছে মাত্র ১৩৭ গ্রাম।
  • ব্যাক সেকশনে ৮ মেগাপিক্সেল এবং সামনের অংশে একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা পাবেন মোবাইলের মধ্যে।
  • এই কম দামে ভিভো সেট টির মধ্যে ২৫০০ মিলি এম্পিয়ার এর একটি লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি আছে।
  • রেম হিসেবে এখানে দুই জিবি স্টোরেজ এবং ফোন মেমোরি হিসেবে ১৬ জিবি স্টোরেজ দেওয়া আছে।
  • কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪২৫ এর চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে মোবাইলটির পারফরম্যান্স সেকশনে । আর এই চিপসেট টি হলো ২৮ ন্যানোমিটার এর একটি চমৎকার চিপসেট।
  • তবে মোবাইলটির মধ্যে সিকিউরিটি অপশনে কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট কিংবা ফেস আনলক সিস্টেম নেই।

উপরে আশা করি আপনারা এই ভিভো y53 মোবাইলটি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন। তবে আমার মনে হয় যে এই দামে মোবাইলটি ক্রয় করা ভালো হবে না।

আপনারা ৯ হাজার টাকার মধ্যে অন্য ভিভো কোম্পানির মোবাইল পেয়ে যাবেন লেটেস্ট সেটা নিতে পারেন।

Vivo Y71

ভিভো কোম্পানির মোবাইল কেনার ক্ষেত্রে যদি আপনার বাজেট ১০০০০ টাকার মত হয়ে থাকে তাহলে এই মোবাইলের স্পেসিফিকেশন এবং রিভিউ গুলো দেখতে পারেন।

নিচে এখন এক এক করে মোবাইলটি সম্পর্কে যাবতীয় ইনফরমেশন গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলো।

  • মোবাইলের ডিসপ্লের সাইজ হচ্ছে ৬ ইঞ্চি। আর এই ডিসপ্লে টি এইচ ডি প্লাস এবং এর টেকনোলজি হচ্ছে আইপিএস এলসিডি টাস স্ক্রিন।
  • এর মধ্যে যে ডিসপ্লে টি ব্যবহার করা হয়েছে সেটা রেজুলেশন হল 720 x 1440 এবং ডিসপ্লেটি ২৬৮ পিপিআই দিয়ে বানানো।
  • পিছনের সেকশনে ১৩ মেগাপিক্সেল এবং সামনের সেকশন এ আর একটি ৫ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে মোবাইলটিতে। যে ক্যামেরা গুলো দিয়ে বেশ ভালো ছবি উঠানো সম্ভব।
  • এছাড়া মোবাইল টির মধ্যে লিথিয়াম পলিমার এর ৩৩৬০ মিলিম্পিয়ারের আরেকটি ব্যাটারি ও দেওয়া হয়েছে। তবে এই ব্যাটারিটি দিয়ে খুব বেশি ব্যাকআপ পাওয়া সম্ভব হবে না।
  • vivo y71 মোবাইলটির android অপারেটিং সিস্টেম এর ভার্সন হল ৮.১ ।
  • এই মোবাইলের মধ্যে যে চিপসেট দেওয়া হয়েছে সেটার মডেল নাম হচ্ছে কোয়ালকম স্ন্যাপ ড্রাগন ৪২৫ চিপসেট।
  • এর মধ্যে ২ জিবি র‍্যাম এর পাশাপাশি ১৬ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ ইনক্লুড করা আছে। তবে আপনারা এই মোবাইলটির মধ্যে আরও ২৫৬ জিবি এক্সট্রা মেমোরি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।
  • এই ভিভো ওয়াই ৭১ মোবাইলের দাম হচ্ছে ৯৯৯০ টাকা। তবে এই মোবাইলের ব্যাটারি সেকশন এ একটু দুর্বল রয়েছে। মোবাইলটিতে খুব বেশি চার্জ থাকবে না।

আমার সাজেশন হচ্ছে এই ধরনের পুরাতন মডেল না কিনে ভিভো কোম্পানি থেকে নতুন লেটেস্ট মডেল এর মোবাইল গুলো কেনার চেষ্টা করবেন।

Vivo Y91C

এই vivo y91 c মোবাইল টিও কম দামে ভিভো সেট এর মধ্যে একটি মোবাইল। তো বন্ধুরা এই মোবাইলটি খুব বেশি পুরাতন নয়।

লেটেস্ট ভিভো কোম্পানির এই মোবাইলটি আপনারা চাইলে দেখতে পারেন ভালোভাবে। চলো তাহলে এখন আমরা এই vivo y91 সি মোবাইলটির ফুল স্পেসিফিকেশন দেখে নেই।

  • মার্চ মাসের ২০১৯ সালে সর্বপ্রথম মোবাইলটি বাংলাদেশে মার্কেটে লঞ্চ করা হয়েছিল।
  • এই মোবাইলটি আপনারা মোট তিনটি কালারে পেয়ে যাবেন একটি হচ্ছে কালো আর একটি হচ্ছে নীল এবং আর একটি হচ্ছে লাল।
  • এই মোবাইলের ওজন ১৬৩ গ্রাম এবং এর ডিসপ্লে এর আকার হলো ৬.২২ ইঞ্চি।
  • ডিসপ্লের ওপরে আলাদা কোন প্রটেকশন নেই কিন্তু এটি মাল্টিটাস ফিসার্চ এর একটি চমৎকার একটি ডিসপ্লে।
  • এই মোবাইলের পিছনে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা এবং সামনে ৫ মেগাপিক্সেলের আরেকটি সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। যে ক্যামেরা দুটি দিয়ে ১ হাজার ৮০ পিক্সেল এর ভিডিও খুব সহজে রেকর্ড করা সম্ভব হবে।
  • মোবাইলের ব্যাটারি সেকশনে ৪০৩০ মিলি এম্পিয়ারের একটি লিথিয়াম অয়ন দিয়ে বানানো ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। আর এই ব্যাটারিটি মোবাইল থেকে খোলা সম্ভব নয় অর্থাৎ মোবাইলের সাথে একদম অ্যাডজাস্ট করা।
  • এই মোবাইলের চিপ সেটের মধ্যে মিডিয়াটেক হেলিও পি টুয়েন্টি টু চিপসেট দেওয়া হয়েছে। এই চিপ সেট টি হচ্ছে 12 ন্যানোমিটার এর একটি চিপ সেট।
  • মোবাইলটির রেম দেওয়া হয়েছে 2 জিবি এবং এখানে ইন্টার্নাল মেমোরি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ৩২ জিবি স্টোরেজ।
  • সিকিউরিটি অপশনে এখানে কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দেওয়া হয় নাই কিন্তু এখানে ফেস আনলক সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে।
  • এই মোবাইল এর দাম হলো ১০ হাজার ৯৯০ টাকা। এই মোবাইলে টাইপ সি কেবল ব্যবহার করা হয় নাই কিন্তু এখানে ওটিজি ক্যাবল সিস্টেম দেওয়া হয়েছে।

যদি আপনার বাজেট ১১ হাজার টাকার মধ্যে হয়ে থাকে এবং vivo কোম্পানির মোবাইলই কিনতেই ইচ্ছুক হয়ে থাকেন তাহলে এই মোবাইলটি নিতে পারেন।

Vivo Y81i

এটিও ২০১৮ সালের একটি ভিভো কোম্পানির কম দামের মোবাইল। কম দামের ভিভো সেটগুলোর মধ্যে এই মোবাইলটি আজকে একদম শেষে রাখা হয়েছে।

যদি এটি কিনতে চান তাহলে অবশ্যই আগে ভালোভাবে স্পেসিফিকেশন গুলো পড়ে তারপর কিনবেন।

  • নভেম্বর মাসের ২০১৮ সালে মোবাইলটি বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়েছিল।
  • সোনালী রঙের এবং কালো রঙের এই দুটি কালারের মধ্যে মোবাইলটি পাওয়া যায়।
  • ওয়াইফাই , হটস্পট , লোকেশন, ব্লুটুথ সহ যতগুলো কানেক্টিভিটি একটি স্মার্ট ফোনে থাকা দরকার সবকিছুই এই মোবাইল ফোন এর মধ্যে আছে।
  • একাধারে টুজি থ্রিজি এবং ফোরজি নেটওয়ার্ক এই মোবাইল ফোনটিতে ব্যবহার করা যাবে।
  • এখানে আপনারা একসাথে সর্বোচ্চ দুইটি সিম কার্ড তুলতে পারবেন এবং সাথে আরেকটি মেমোরি কার্ড ও ব্যবহার করতে পারেন।
  • মোবাইলটিতে এফএম রেডিও আছে এবং ওটিজি কেবল লাগানোর সিস্টেম ও আছে কিন্তু এখানে কোন টাইপ সি পোর্ট দেওয়া হয়নি।
  • এই মোবাইলের মধ্যে কোন ওয়াটার রেজিস্তেন্স ব্যবহার করা হয় নাই আর এর ওজন হলো ১৪৩ গ্রাম ।
  • ৬ পয়েন্ট ২২ ইঞ্চি এর একটি চমৎকার ডিসপ্লে দেওয়া আছে মোবাইল টির মধ্যে। আর এই ডিসপ্লেটিকে প্রোটেক্ট করার জন্য কোয়ার্নিং গোরিলা গ্লাস প্রটেকশন ও ব্যবহার করা হয়েছে।
  • মোবাইলটির সামনে এবং পিছনে মিলে আপনারা মোট দুইটি ক্যামেরা পেয়ে যাবেন। এর মধ্যে পিছনের টা হচ্ছে ১৩ মেগাপিক্সেল এর একটি সেন্সর এবং সামনেরটা হচ্ছে ৫ মেগাপিক্সেল এর আরেকটি ক্যামেরা সেন্সর।
  • চিপসেট হিসেবে এখানে মিডিয়াটেক হেলিও এ ২২ এর ১২ ন্যানোমিটার যুক্ত একটি চমৎকার চিপসেট দেওয়া হয়েছে।
  • আর এই মোবাইলের পাওয়ার সাপ্লাই দেওয়ার জন্য এখানে ৩২৬০ মিলি আম্পিয়ারের একটি লিথিয়াম পলিমার দিয়ে তৈরি ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। তবে এই ব্যাটারীটি মোবাইলের সাথে একদম লাগানো হয়েছে যার কারণে ব্যাটারি টি এমনিতে মোবাইল থেকে খোলা সম্ভব নয়।
  • স্টোরেজ সেকশনে এই কম দামে ভিভো সেট এর মধ্যে ২ জিবি রেম এবং ১৬ জিবি মোবাইল মেমোরি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আপনারা ২৫৬ জিবি পর্যন্ত আলাদা মেমোরি কার্ড লাগিয়ে এর স্টোরেজ কয়েক গুণ বাড়িয়ে নিতে পারবেন।
  • এই মোবাইলের মধ্যে কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক সিস্টেম ব্যবহার করা না হলেও এখানে সুন্দরভাবে ফেস আনলক প্রযুক্তি রয়েছে । যেটা পরবর্তীতে ব্যবহার করে এর সিকিউরিটি আরোও মজবুত করতে পারবেন।

এই vivo y81i mobile এর দাম ৯৯৯০ টাকা। আপনারা আপনাদের শহরের বিভিন্ন ভিভো কোম্পানির মোবাইলের শোরুম থেকে মোবাইলটি সংগ্রহ করতে পারেন।

বাজেট ১০ হাজার টাকার মধ্যে হয়ে থাকলে আপনারা এই মোবাইলটি চাইলে নিতে পারেন। তবে মোবাইলটি নেওয়ার আগে অবশ্যই আরো ভালো ভাবে রিসার্চ করে নিবেন।

শেষকথা

আজকের এই পোস্টে আমরা বেশ কয়েকটি কম দামে vivo সেট এর দাম এবং বিস্তারিত আপনাদের সাথে আলোচনা করেছি। এখানে আমরা চেষ্টা করেছি ভিভো কোম্পানি থেকে প্রকাশিত সমস্ত মোবাইলগুলো থেকে যেগুলোর দাম সবথেকে কম সেগুলো পোস্টে উল্লেখ করতে।

তবে আমি আপনাদেরকে সাজেশন দেবো vivo কোম্পানির এই কম দামের মোবাইল গুলো ১০ হাজার টাকা দিয়ে কেনার থেকে এই টাকা দিয়ে অন্য কোম্পানির মোবাইল গুলো কেনা ভালো হবে।

আর সব সময় চেষ্টা করবেন কোম্পানি থেকে প্রকাশিত একদম লেটেস্ট মোবাইল গুলো নেওয়ার। কারণ লেটেস্ট মোবাইল গুলোতে সবথেকে আপডেট প্রযুক্তি এবং আপডেট ভার্সন এর কম্পনেন্ট গুলো ব্যবহার করা হয়।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *