দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন - দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন

দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন – দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন দরখাস্ত কলেজ ও অনার্স ১ম বর্ষ

আসসালামু আলাইকুম যারা দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য আজকের পোস্ট। এখানে আপনাদের সাথে দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন দরখাস্ত কলেজ সহ দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন পত্র অনার্স ১ম বর্ষ শেয়ার করা হবে।

আবেদনপত্র লেখার সময় অবশ্যই এই আবেদন পত্রের ফরমেট টি ঠিক করতে হবে। তো প্রথমে আপনাদের সাথে আমরা দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন পত্রের ফরমেটটি বুঝিয়ে দেবো এবং তারপর সুন্দরভাবে আবেদন পত্রের নমুনাগুলো দিয়ে দেব।

দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন লেখার নিয়ম বা ধাপ

নিচে সুন্দরভাবে ফরমেট টি সাজিয়ে দেওয়া হল এই ফরমেট অনুযায়ী আপনাদেরকে এই আবেদন পত্র গুলো লিখে তারপর জমা দিতে হবে।

তারিখ ( আবেদন পত্রের শুরুতেই যে দিনে আবেদন পত্রটি জমা দেওয়া হবে সেই দিনের তারিখটি উল্লেখ করতে হবে)

বরাবর ,

যে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান বরাবর আবেদনপত্র সাবমিট করা হবে সেটি লিখতে হবে। ( যেমন: অধ্যক্ষ, কোম্পানির ম্যানেজার)

প্রতিষ্ঠানের নাম। ( আপনি যে স্কুল-কলেজে বা যে কোম্পানিতে আবেদন পত্র জমা দিবেন সেই কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের নামটি সুন্দরভাবে উল্লেখ করতে হবে)

ঠিকানা ( এখানে আপনার প্রতিষ্ঠানটি যেখানে অবস্থিত সেই জায়গার ঠিকানাটি দিতে হবে)

বিষয়: দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন পত্র। ( এছাড়াও এখানে আপনি আপনার মত করে সুন্দর ভাবে সাজিয়ে বিষয়টি লিখে দিতে পারবেন )

জনাব/জনাবা/সাহেব/সাহেবা

______ এখানে বিস্তারিত বর্ণনা _______

বিস্তারিত বর্ণনায় আপনি সুন্দরভাবে দরিদ্র তহবিল কেন চাচ্ছেন সেটি লিখে দিবেন। অবশ্যই এই অংশটি সাজিয়ে গুছিয়ে লিখতে হবে যেন আপনি যার কাছে আবেদন করবেন সে বিষয়টি সঠিকভাবে বুঝতে পারে।

______ শেষ অংশ _____

শেষে এসে আপনি আপনার আবেদন টি মঞ্জুর হওয়ার জন্য সুন্দর ভাষায় আবেদন করতে পারবেন। এখানে আপনি সুন্দর ও মার্জিত ভাষা ব্যবহার করবেন অবশ্যই।

______ আপনার পরিচয় _____

আবেদনপত্রের একদম শেষে এসে অবশ্যই আপনার পরিচয়টি সুন্দরভাবে উল্লেখ করতে হবে। এখানে আপনি স্কুল বা কলেজের হলে আপনার ডিপার্টমেন্ট সহ রোল নম্বর সহ যাবতীয় বিষয়বস্তুগুলো উল্লেখ করে দিবেন।

দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন লেখার নমুনা

নিচে আমরা সুন্দরভাবে আপনাদেরকে নমুনার মাধ্যমে এই দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন পত্র লেখার সিস্টেমটি দেখিয়ে দিচ্ছি। এখানে অবশ্যই হুবহু আমরা যেভাবে লিখে দিচ্ছি এভাবে লিখে দিবেন না। আপনি শুধু এখান থেকে ধারণা নিয়ে আপনার মতো করে সুন্দরভাবে লিখবেন।

তারিখ: ০৪ই জুন ২০২৪ ইং

বরাবর,
অধ্যক্ষ
বরিশাল সরকারি কলেজ
বরিশাল সদর, বরিশাল

বিষয়: দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন

জনাব,
আসসালামু আলাইকুম, আমি আপনার কলেজের নিয়মিত একজন শিক্ষার্থী। আমি বর্তমানে একাদশ শ্রেণীতে অধ্যায়নরত আছি। আমি কোন অনাকাঙ্ক্ষিত কারণবশত ছাড়া কলেজ যাওয়া বন্ধ করি না। যতদিন থেকে আপনার কলেজে ভর্তি হয়েছি ততদিন থেকে আমি প্রতিদিন ক্লাসে উপস্থিত থেকেছি।

আমার বাবা একজন কৃষক তিনি মাঠে কাজ করে যেখান থেকে অর্থ উপার্জন করে আমাদের পরিবারের খরচ চালায়। আমার বাবা চান আমি যেন ভালোভাবে পড়ালেখা করি যার কারণে সে আমাকে কোন কাজে যেতে দেয় না। আমিও চাই ভালোভাবে পড়ালেখা করে নিজের ভবিষ্যৎকে উজ্জ্বল করতে।

কিন্তু বর্তমানে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে আমার বাবার উপার্জিত অর্থ দিয়ে পরিবারের খরচ চালানো মুশকিল হয়ে যাচ্ছে। এর ওপর তিনি আমার কলেজের ফি দিতেও হিমশিম খাচ্ছে। যদি এভাবে চলতে থাকে তাহলে হয়তো আমি আমার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে সক্ষম হব না।

একমাত্র আপনি চাইলে আমি আমার লেখাপড়াটি সুন্দরভাবে চালিয়ে যেতে পারবো। আপনি যদি আমাকে স্কুল থেকে কোন স্কলারশিপ প্রদান করেন বা আমার লেখাপড়ার যাবতীয় খরচে সাহায্য করেন তাহলে আমি সুন্দরভাবে আমার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারবো। নতুবা আমার পক্ষে লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়া খুব বেশি দুষ্কর হয়ে পড়েছে।

সুতরাং আপনি আমার বিষয়টি বিবেচনা করে আমার আবেদনটি মঞ্জুর করে দরিদ্র তহবিল থেকে আমাকে সাহায্য করার অনুরোধ জানাচ্ছি। আশা করি আপনি আমার ব্যাপারটি ভালভাবে ভেবে দেখবেন এবং আমার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিবেন।

নিবেদক
আপনার কলেজের নিয়মিত ছাত্র
মো: আকিজ উদ্দিন
শ্রেণী: একাদশ
বিভাগ: বিজ্ঞান
রোল: ৪৫

উপরের নমুনাটি দেখে আশা করি সুন্দর ভাবে আপনারা দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন পত্রটি লিখে দিতে পারবেন। এখানে অবশ্যই আপনি আপনার পারিবারিক সমস্যা বা আপনার অন্য কোন সমস্যা থাকলে সেটা সুন্দরভাবে সহজ ভাষায় উল্লেখ করবেন।

আর অবশ্যই আবেদন পত্র লেখার সময় কোন ধরনের বানান ভুল ত্রুটি করা যাবে না । এছাড়াও কোন অবাঞ্চিত শব্দ ব্যবহার করে আবেদন পত্র লেখা যাবে না।

দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন দরখাস্ত কলেজ

উপরে যেভাবে আমরা নমুনাটি দেখিয়ে দিয়েছি সেভাবে চাইলে আপনারা বাকি গুলো লিখে ফেলতে পারবেন। শুধুমাত্র যেখানে লিখে জমা দিবেন সেই জায়গার ক্ষেত্রে বরাবর এ সঠিকভাবে উল্লেখ করতে হবে। এরপরও নিচে দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন দরখাস্ত কলেজ এর নমুনাটি উল্লেখ করে দেওয়া হলো।

তারিখঃ ১৫ই সেপ্টেম্বর ২০২৪
বরাবর
অধ্যাক্ষ
শাহ আব্দুর রউফ কলেজ পীরগঞ্জ
পীরগঞ্জ, রংপুর

বিষয়ঃ অধ্যক্ষের নিকট দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের জন্য আবেদন

জনাব,

আসসালামুয়ালাইকুম আমি আপনার অত্র কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের একজন নিয়মিত ছাত্র। আমিনিয়মিত আমি কলেজে উপস্থিত থাকি এবং কলেজের স্যারদের কথা মেনে চলি এবং ক্লাসের প্রতিটা পড়া মনোযোগ সহকারে পড়ি। আমি চাই আমার পড়াশোনার ধারা এভাবে অব্যাহত থাকুক।

আমি বিজ্ঞান বিভাগে আমার পরবর্তী পড়ালেখা চালিয়ে যেতে চাই এবং ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে আমার ক্যারিয়ার গড়তে চাই। তবে বিজ্ঞান বিভাগে পড়ালেখা করতে যেয়ে আমার অনেক টাকা খরচ হয়ে যাচ্ছে যেটা বাসা থেকে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আর এই টাকার জন্য আমি সঠিকভাবে আমার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারছিনা।

আমার বাবা যে টাকা উপার্জন করে সেই টাকা দিয়ে আমার কলেজের ফ্রি এবং টিউশন ফি গুলো সঠিকভাবে পরিশোধ করতে পারেনা। এছাড়াও আমার বাবার উপার্জিত টাকা পরিবারের পিছনে বেশিরভাগ খরচ হয়ে যায় বর্তমানে বাংলাদেশের দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির জন্য। যদি এভাবে বাড়ি থেকে আমার পড়াশুনার খরচ চালাতে না পারে তাহলে আমি বিজ্ঞান বিভাগে পড়ে খুব বেশি দূর যেতে পারবো না।

আর আপনি ভালোভাবেই জানেন বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করে ভালোভাবে টিউশন না পড়লে ভালো রেজাল্ট করাটাও সম্ভব হয় না। যেহেতু শুধুমাত্র টাকা-পয়সার সমস্যার জন্য আমার পড়াশোনায় অনেকটা ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে এই কারণে আমি আপনার নিকট আবেদন করতে চাই আমাকে যেন দরিদ্র তহবিল থেকে পড়ালেখার খরচে সাহায্য করা হয়। আপনি যদি আমার আবেদন টি মঞ্জুর করে কলেজের ফ্রী সহ দুটো দুটো তহবিল থেকে কোন সাহায্য করেন তাহলে সেটা আমার জন্য এবং আমার পরিবারের জন্য খুব ভালো হবে।

অতএব উক্ত দিকগুলো বিবেচনা করে এবং আমার আবেদনটি ভালোভাবে যাচাই বাছাই করে আমার আবেদনটি মনজুর করার প্রার্থনা জানাচ্ছি। আশা করি আপনি আমার আবেদনটি গ্রহণ করবেন এবং আমাকে দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্য করবেন।

নিবেদক,
অত্র কলেজের নিয়মিত ছাত্র
মোঃ আজিজ উদ্দিন
শ্রেণীঃ একাদশ
বিভাগঃ বিজ্ঞান
রোলঃ ২৮

দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন পত্র অনার্স ১ম বর্ষ

উপরে আমরা দুইটি দরিদ্রতা হবে থেকে আবেদন পত্রের নমুনা আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। এখন আমরা সুন্দরভাবে দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন পত্র অনার্স প্রথম বর্ষ এর জন্য কিভাবে লিখবেন সেটা শেয়ার করব।

এখানে বলে রাখা ভালো অনার্স করার ক্ষেত্রে আপনি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেন সেটির আলাদা নিয়ম থাকতে পারে। আপনি হয়তো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা কোনো প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স এ অধ্যায়নরত আছেন সেটা আপনাকে অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে।

আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন কোন বরাবর আবেদন করলে আপনার এই দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদনের মনজুর হওয়া সম্ভাবনা রয়েছে সেই বরাবর আবেদন করতে হবে। আর আবেদন পত্রের মধ্যে কোন গ্রামেটিকেল বা কোন আক্ষরিক ভুল থাকা যাবে না অবশ্যই ভালো হবে সেটি লক্ষ্য করতে হবে ।

তারিখঃ ১৯ই ফেব্রুয়ারি ২০২২ ইং
বরাবর
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
রাজশাহী , সদর রাজশাহী

বিষয়ঃ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন

জনাব,
আমি আপনাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে চলতি বছ্রে ভর্তি হয়েছি এবং আমি বর্তমানে অনার্স প্রথম বর্ষে অধ্যায়নরত আছি। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার আগে থেকেই আমি আমার পড়াশোনার প্রতি অনেক বেশি মনোযোগী ছিলাম । আমার স্বপ্ন ছিল ভালো বিশ্ববিদ্যালয় পড়ে আমি পরবর্তীতে ভালো কিছু করব দেশ এবং জাতির সেবা করবো। আলহামদুলিল্লাহ আমি এই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পড়ার সুযোগ পেয়েছি এবং আমি আমার পড়াশোনা খুব সুন্দর ভাবে চালিয়ে যেতে চাই।

তবে আমার পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা বর্তমানে খুব একটা ভালো নয়। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার আগে আমি বাসায় থেকে আমার পড়াশোনা গুলো চালিয়ে গিয়েছি এই কারণে একটু খরচ কম হয়েছে তাই আমার পরিবার থেকে সেটি বহন করতে পেরেছিল। এরপরেও আমি বিভিন্ন স্কলারশিপ পাওয়ার মাধ্যমে আমার পড়াশুনার খরচ গুলো করতে পেরেছিলাম।

তবে যেহেতু আমি বর্তমানে শহরে থেকে পড়াশোনা করছি অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে, যার কারণে আমার খরচ আগেআর থেকে অনেক বেড়ে গেছে। আবার যেহেতু আমি আর কোন স্কলারশিপ পাচ্ছিনা এই কারণে পড়াশোনার খরচ চালানোটা অনেক কষ্টসাধ্য হয়ে গেছে।

দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার অবনতির কারণে আমাদের পারিবারিক অর্থনৈতিক সমস্যা ও আগের থেকে অনেক বেড়ে গিয়েছে। এখন যদি আমি অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের দরিদ্র তহবিল থেকে কোন সাহায্য না পাই তাহলে আমার পড়াশোনা চালানো মুশকিল হয়ে যাবে।

অতএব উক্ত বিষয়গুলো বিবেচনা করে আমি যেন একটি স্কলারশিপ পাই সে বিষয়টি ভেবে দেখবেন এবং আমার আবেদন পত্রটি মঞ্জুর করার দৃঢ় প্রার্থনা জানাচ্ছি।

নিবেদক
অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত ছাত্র
অনার্স প্রথম বর্ষ
ইংরেজি বিভাগ
রেজিঃ নং: ৩৭৪০১৪

শেষকথা: দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন

এই পোস্টে আমরা সুন্দরভাবে দরিদ্র তহবিলের জন্য আবেদন এবং দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্যের আবেদন পত্র লেখার নমুনা এবং নিয়মগুলো সুন্দরভাবে বুঝিয়ে দিয়েছে। দরিদ্র তহবিল থেকে সাহায্য পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে আসলেই দরিদ্র হতে হবে এবং কারণটি বিদ্যালয়ের সাথে সঠিকভাবে শেয়ার করতে হবে।

এখানে যদি আপনি শুধুমাত্র পরীক্ষায় লেখার জন্য আবেদন পত্রটি পড়ে থাকেন তাহলে সুন্দর ভাবে পরীক্ষার খাতাই আমাদের দেওয়া আবেদনপত্রটি লিখে দিতে পারবেন। তবে যদি আপনি সরাসরি কলেজে আবেদন করতে চান তাহলে অবশ্যই হুবহু এগুলো না লিখে আপনার নিজের সমস্যাটির কথা নিজের মতো করে সুন্দরভাবে গুছিয়ে লিখে আবেদন পত্রটি জমা দিতে হবে।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *